Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

পূর্ণ হল জনতা কারফিউয়ের এক বছর, জেনে নিন, কোথা থেকে এসেছিল এর ধারণা

২২ শে মার্চ ২০২০, ভারতের ইতিহাসে এটি এমন একটি দিন ছিল, যখন লোকেরা সকালে চোখ খোলে, তারা তাদের চারপাশে নীরবতা খুঁজে পেয়েছিল। ট্র্যাফিকের কোলাহল নেই, মেশিনের শব্দ নেই, অফিসে যাওয়ার জন্য তাড়াহুড়ো নেই। পরিবারের লোকেরা তাদের নিত্যদিনে…



২২ শে মার্চ ২০২০, ভারতের ইতিহাসে এটি এমন একটি দিন ছিল, যখন লোকেরা সকালে চোখ খোলে, তারা তাদের চারপাশে নীরবতা খুঁজে পেয়েছিল। ট্র্যাফিকের কোলাহল নেই, মেশিনের শব্দ নেই, অফিসে যাওয়ার জন্য তাড়াহুড়ো নেই। পরিবারের লোকেরা তাদের নিত্যদিনের কাজগুলি করছিল, ব্যাচেলর এবং একা বসবাসকারী লোকেরা হয়তো সারাদিন বিছানায় শুয়ে থেকেই কাটিয়েছিল।


কিন্তু, এটি কোনও বিশ্রাম নেওয়ার বা আনন্দের দিন ছিল না। এই দিনটি ছিল ভয়ে পরিপূর্ণ। এই দিনটি ছিল জনতা কারফিউয়ের দিন।


আজ এই জনতা কারফিউর এক বছর পূর্ণ হচ্ছে। ২০২০ সালের ১৯ মার্চ, প্রধানমন্ত্রী মোদী দেশের জনগণকে সম্বোধন করেছিলেন। দেশে ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়া করোনার সংক্রমণ সম্পর্কে তিনি ভাষণ দিয়েছিলেন। এই সময়েই লোকেরা প্রথমবার দুটি নতুন শব্দ শুনতে পেল - জনতা কারফিউ। কারফিউ কোনও নতুন শব্দ ছিল না। তবে জনতার সাথে তাঁর সংযোগ নিজের মধ্যে নতুন ছিল। 


প্রধানমন্ত্রী ভাষণে বলেছিলেন, "এই রবিবার, ২২ শে মার্চ, সকাল ৭ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত সমস্ত দেশবাসীকে জনতা কারফিউ অনুসরণ করতে হবে। প্রয়োজন না থাকলে বাড়ি থেকে বের হবেন না। আমাদের এই প্রচেষ্টা আমাদের আত্ম-সংযম, জাতীয় স্বার্থে দায়িত্ব পালনের দৃঢ়তার প্রতীক হবে। ২২ শে মার্চ জনতা কারফিউয়ের সফলতা, অভিজ্ঞতা, আমাদের আসন্ন চ্যালেঞ্জগুলির জন্য প্রস্তুত করবে।" এর সাথেই প্রধানমন্ত্রী এই দিনে বিকেল ৫ টার সময় বাড়ির বারান্দায় এসে ৫ মিনিট, হাততালি দিয়ে, থালা বাজিয়ে, যারা কোভিডের সাথে মোকাবেলা করছেন তাদের সম্বর্ধনা জানাতে বলেছিলেন।


জনতা কারফিউ কোথা থেকে এসেছে?

প্রধানমন্ত্রী মোদী নিজেই নিজের ভাষণে এই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন যে আজকের প্রজন্ম এর সাথে খুব বেশি পরিচিত হবে না, তবে পুরানো কালে যখন যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হতে, তখন গ্রামের পর গ্রাম ব্ল্যাকআউট হয়ে যেত।"এই পুরানো ব্ল্যাকআউটের কথা উল্লেখ করে তিনি যোগ বলেছিলেন, "ঘরের জানালার কাঁচে কাগজ লাগিয়ে দেওয়া হত, আলো নিভিয়ে দোয়া হত, লোকেরা চৌকি তৈরি করে পাহারা দিতো। আমি আজ প্রত্যেক দেশবাসীর কাছ থেকে আরও একটি সমর্থন চাইছি।"

No comments