Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

চটপট পেটের মেদ কমানোর পাঁচটি উপায়

পুজোর আগে যে ক’টাদিন বাকি আছে, তার মধ্যে আর কিছু হোক না হোক, পেটের চারপাশে জমে ওঠা মেদের পরতটাকে সরিয়ে ফেলতে পারলে কার না ভালো লাগবে? সুবিধেটা হচ্ছে, পেটের ফ্যাট কমিয়ে ফেললে দেখতে ভালো লাগার পাশাপাশি অনেকগুলো সুবিধেও হবে আপনার৷ ক…

 



পুজোর আগে যে ক’টাদিন বাকি আছে, তার মধ্যে আর কিছু হোক না হোক, পেটের চারপাশে জমে ওঠা মেদের পরতটাকে সরিয়ে ফেলতে পারলে কার না ভালো লাগবে? সুবিধেটা হচ্ছে, পেটের ফ্যাট কমিয়ে ফেললে দেখতে ভালো লাগার পাশাপাশি অনেকগুলো সুবিধেও হবে আপনার৷ কমে যাবে হৃদরোগ আর টাইপ টু ডায়াবেটিসের আশঙ্কা, হাঁটুর উপর কম চাপ পড়বে৷ তা হলে আর দেরি না করে লেগে পড়ুন কোমর বেঁধে!


এমন খাবার খান যা সলিউবল ফাইবারে সমৃদ্ধ: সলিউবল ফাইবার আমাদের পেটে অনেকক্ষণ থাকে৷ ফলে ঘন ঘন খিদে পাবে না, অনেক বেশিক্ষণ পেট ভরে থাকার অনুভূতি হবে৷ সাধারণত উদ্ভিজ্জ খাবারেই ফাইবারের পরিমাণ বেশি হয়৷ তাই বেশি করে ফল ও সবজি খান অবশ্যই, তাতে ফাইবারের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণও পাবে আপনার শরীর৷


সবরকম মিষ্টি আর নরম পানীয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করুন: বোতলবন্দি সফট ড্রিঙ্ক তো বটেই, বাড়িতে তৈরি শরবত, স্কোয়াশ ইত্যাদি থেকেও দূরে থাকার চেষ্টা করুন৷ চলবে না কোনও মিষ্টি, ফলের রস এবং এনার্জি ড্রিঙ্কও৷ চিনি হচ্ছে অর্ধেক গ্লুকোজ়, অর্ধেক ফ্রুকটোজ় এবং আমাদের লিভারে তা মেটাবলাইজ়ড হয়৷ আপনি যত বেশি চিনি খাবেন, তত বেশি ফ্রুকটোজ় জমা হবে লিভারে এবং একটা সময়ের পর লিভার তা ফ্যাটে পরিণত করবে৷ একাধিক সমীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে যে অতিরিক্ত চিনি খেলে আপনার লিভার আর পেটে ফ্যাট জমতে বাধ্য৷ তখনই ইনসুলিনের প্রতি রেজিস্ট্যান্স তৈরি হবে শরীরে, আরও নানা মেটাবলিক ডিসঅর্ডার দেখা দেবে৷ তবে ফ্রুকটোজ় শুনেই আবার ভাববেন না যে ফল খাওয়ার উপর কোনও নিষেধাজ্ঞা আছে৷ গোটা ফল চিবিয়ে খাওয়ার অনেক স্বাস্থ্যকর দিক আছে, তার ফলে ফ্রুকটোজ়ের নেগেটিভ দিকগুলি বাতিল হয়ে যায়৷ মনে রাখবেন, প্যাকেটজাত যে কোনও খাবারে, এমনকী ‘হেলথ ফুড’ তকমা লাগা খাবারেও চিনি লুকিয়ে থাকে!


প্রোটিনের মাত্রা বাড়ান: যাঁরা ওজন কমাতে চাইছেন, তাঁরা ডায়েটিশিয়ানের সঙ্গে পরামর্শ করে প্রোটিনসমৃদ্ধ কোনও ডায়েট ট্রাই করে দেখতে পারেন৷ বাড়তি প্রোটিন ঠেকিয়ে রাখবে আপনার খিদের বোধ, বাড়াবে মেটাবলিজ়মের হার৷ বাদাম, দুধ ও দুধজাত খাবার, মাছ, ডিম (কুসুমসহ), মাংস, ডাল ইত্যাদি হচ্ছে সেরা প্রোটিন৷ এগুলি খাদ্যতালিকায় রাখার পরেও যদি মনে হয় যে যথাযথ প্রোটিন সংশ্লেষ হচ্ছে না শরীরে, তা হলে প্রোটিন সাপ্লিমেন্ট ব্যবহার করার কথা ভেবে দেখতে পারেন৷


কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণ কমান: কার্বোহাইড্রেট একেবারে ছেঁটে ফেলাটা খুব বড়ো ভুল৷ তবে আমাদের প্রয়োজনের অতিরিক্ত কার্বোহাইড্রেট, বিশেষ করে ময়দার মতো রিফাইন্ড কার্বোহাইড্রেট আর ভাজাভুজি খাওয়ার অভ্যেস গড়ে ওঠে৷ সেটা অবশ্যই বদলানো দরকার৷


ব্যায়াম করতেই হবে: এই সব বিধিনিষেধ মানার পাশাপাশি ব্যায়াম না করলে কিন্তু প্রার্থিত ফল পাওয়ার আশা নেই৷ ব্যায়াম বলতে কিন্তু আমরা কেবল পেটের ব্যায়ামের কথাই বলছি না৷ যে কোনও কার্ডিও এক্সারসাইজ় পুরো শরীরের ওজন কমানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেয়৷ সাঁতার, হাঁটা, দৌড়নোর মধ্যে থেকে যে কোনও একটা বেছে নিন৷ হাই বা লো ইন্টেনসিটি ইন্টারভ্যাল ট্রেনিংও ট্রাই করে দেখতে পারেন৷

No comments