Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

ঘন ঘন ঠান্ডা লাগার সমস্যা দূর করতে, এই ঘরোয়া প্রতিকার গুলো অনুসরণ করুন :

অনেকেরই ঘন ঘন ঠান্ডা লাগার সমস্যা লেগেই থাকে। এজন্য বিভিন্ন ধরনের ওষুধ খেয়ে থাকেন। তারপরও মিলছে না এর প্রতিকার। এবার ঘরোয়া উপায়ে চেষ্টা করে দেখুন। সঠিক উপায়ে পেঁয়াজ-মধু খেলে ঘন ঘন ঠান্ডা লাগার হাত থেকে রক্ষা পাবেন।
শীতকাল মানেই আব…





অনেকেরই ঘন ঘন ঠান্ডা লাগার সমস্যা লেগেই থাকে। এজন্য বিভিন্ন ধরনের ওষুধ খেয়ে থাকেন। তারপরও মিলছে না এর প্রতিকার। এবার ঘরোয়া উপায়ে চেষ্টা করে দেখুন। সঠিক উপায়ে পেঁয়াজ-মধু খেলে ঘন ঘন ঠান্ডা লাগার হাত থেকে রক্ষা পাবেন।


শীতকাল মানেই আবহাওয়ার পরিবর্তন। বিশেষ করে ফেব্রুয়ারিতে অর্থাৎ শীতের শেষের দিকে আরও একবার ঠান্ডা পড়ে। আর এই আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। ঠান্ডা লাগা, কফ-কাশি, বদহজম, অ্যালার্জিসহ একাধিক রোগের ফলে বিপাকে পড়েন মানুষজন। এই সময় পেঁয়াজ-মধুর রস পানীয় হিসেবে খেলে ঠান্ডা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। 


কীভাবে তৈরি করবেন  পেঁয়াজ-মধুর এই পানীয় মিশ্রণ -



পরিমাণ মতো পেঁয়াজ নিয়ে কুচি কুচি করে কেটে ফেলতে হবে। এরপর পেঁয়াজ কুচির সঙ্গে প্রয়োজন মতো মধু মিশিয়ে কয়েক ঘণ্টা ধরে অল্প আঁচে ফোটাতে হবে। পেঁয়াজগুলো ধীরে ধীরে মধুর সঙ্গে মিশতে থাকবে। এরপর পানীয় থেকে পেঁয়াজগুলো ছেঁকে নিয়ে, একটি পাত্রে রাখতে হবে। এবার নির্দিষ্ট নিয়মে তা পান করতে হবে।


:- ঠান্ডা লাগার কারণ : 


শীতকালে আবহাওয়ার পরিবর্তন আর ঠান্ডা লাগার কারণে নানা ধরনের ভাইরাল জ্বর ও সংক্রমণ দেখা যায়। নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া, গলা ব্যথা, গলায় সংক্রমণসহ একাধিক সমস্যা হয়। এক্ষেত্রে পেঁয়াজে উপস্থিত ফ্ল্যাভোনয়েড কোরসেটিন শুধুমাত্র অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট নয়, অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান হিসেবে কাজ করে। আর ঠান্ডা লাগার সমস্যাগুলো দূর করে।


মধুর উপকারিতা: 


কফ-কাশির ক্ষেত্রে প্রায়শই মধু খাওয়ার কথা বলা হয়। ঠান্ডা লাগা থেকে বাঁচতে বহুকাল থেকেই এই ঘরোয়া উপায়ের পরামর্শ দেন চিকিৎসকদের একাংশ। এর অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল উপাদান ঠান্ডা লাগা দূর করার পাশাপাশি শরীরও সতেজ রাখে। বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, মধুতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান শুধু ঠান্ডা লাগাই নয়, নানা ধরনের হৃদরোগের সমস্যা ও ক্যানসারের বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে।


পেঁয়াজের উপকারিতা: 


সবজি হিসেবে ব্যবহৃত পেঁয়াজের কিন্তু একাধিক ঔষধি গুণ রয়েছে। পেঁয়াজের অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান দেহের সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে। এর মধ্যে উপস্থিত ফ্ল্যাভোনয়েড ও অ্যালকেনাইল সিস্টেইন সালফোক্সাইডস একাধিক সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। হৃদযন্ত্রও ভালো রাখে।


অ্যালার্জি: 


শীতের সময়ে আরও একটি বাড়তি সমস্যা হল অ্যালার্জি। আসলে ঠান্ডার ফলে প্রয়োজন ছাড়া কেউ তেমন একটা বাইরে বের হয় না। অধিকাংশ সময় ঘরে থাকতে হয়। এতে শরীওে ভিটামিন ডি-র ঘাটতি দেখা যায়। এই সময় বাতাস অপেক্ষাকৃত শুষ্ক হওয়ায়, ত্বকের আর্দ্রতা কমতে থাকে। ফলে ত্বকের পুষ্টিও কমে যায়। আর নানা ধরনের অ্যালার্জি শুরু হয়। এক্ষেত্রে পেঁয়াজ-মধুর চায়ে উপস্থিত ফ্ল্যাভোনয়েড কোরসেটিন দেহে অ্যালার্জি প্রতিরোধ করতে পারে।

No comments