Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

এই সুন্দর জায়গাগুলির কারণেই বাংলাদেশ ভ্ৰমনের দিক দিয়ে অনন্য

বাংলাদেশ ভারতীয় উপমহাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। দেশ বিভাগের আগে এটি ভারতের একটি অংশ ছিল, তবে একটি স্বাধীন দেশ হিসাবে ভারতের সাথে এর সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। প্রাচীন শিল্প থেকে আধুনিক শিল্প পর্যন্ত শিল্পকলার ঝলক এখানে রয়…





বাংলাদেশ ভারতীয় উপমহাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। দেশ বিভাগের আগে এটি ভারতের একটি অংশ ছিল, তবে একটি স্বাধীন দেশ হিসাবে ভারতের সাথে এর সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। প্রাচীন শিল্প থেকে আধুনিক শিল্প পর্যন্ত শিল্পকলার ঝলক এখানে রয়েছে। এই জায়গাটির প্রাকৃতিক দর্শন পর্যটকদের আকর্ষণ করে। বাংলাদেশ তার জায়গাগুলির কারণে বিশ্বজুড়ে পরিচিত, আসুন জানুন সেগুলি সম্পর্কে ।


ঢাকা-  ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী। এটি কেবল দেশের রাজধানীই নয়, এটির অনেক আকর্ষণ থাকার কারণে এটি পর্যটকদের মধ্যে খুব বিখ্যাত। পুরানো এবং নতুন সভ্যতার অনেক নমুনা এখানে পাওয়া যায়। মতিঝিল এখানকার প্রধান বাণিজ্যিক অঞ্চল। ঢাকার বিখ্যাত সদরঘাট পুরানো গঙ্গা নদীর উপর নির্মিত। এখানে  স্থানীয়দের চলাচল সর্বদা দেখা যায়। সদরঘাটের সুন্দর দৃশ্য দেখার জন্য নৌকা, স্টিমার, প্যাডেল স্টিমার, মোটর ইত্যাদির সুবিধা রয়েছে।


সিটিগ্যানভ-  চট্টগ্রামের ছুটির দিক দিয়ে পাহাড়, বন এবং হ্রদ দ্বারা বেষ্টিত খুব ভাল অবস্থিত। এটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর। একে গেটওয়ে অফ বেঙ্গলও বলা হয়, কারণ এখানে একটি আন্তর্জাতিক বন্দরও রয়েছে। সবুজ সবুজ পাহাড়, বিস্তীর্ণ সৈকত এবং মনোরম আবহাওয়া চট্টগ্রামের সৌন্দর্যে যোগ করে। ভারী, মাঝারি ও হালকা শিল্পের জন্য চট্টগ্রাম বিখ্যাত।


রাঙামাটি -  রাঙামাটি সবুজ রঙের মাঝে একটি আঁকাবাঁকা রাস্তা দিয়ে পৌঁছানো যায়। সুন্দর পাহাড় এবং প্রাকৃতিক দৃশ্যের আসল আনন্দ এখানে আসে। কাপাটাই লেকের পশ্চিমে রাঙ্গামাটি হ্রদের কেন্দ্রস্থল হিসাবেও পরিচিত। সুন্দর ল্যান্ডস্কেপ, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, হ্রদ, ঝুলন্ত ব্রিজ, আইভরি গহনা, চাকমা এবং মারমা উপজাতির যাদুঘরগুলি এখানে আকর্ষণীয় কেন্দ্র।


কাপ্তাই-  চট্টগ্রাম থেকে ৫৪ কিলোমিটার পথ ভ্রমণ করে এখানে পৌঁছানো যায়। সবুজ বন এবং নীল জলের দৃশ্য এখানকার সৌন্দর্য দ্বিগুণ করে। কামাফুলি নদীর উপর ৮০ বর্গকিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত কাপ্তাই হ্রদটি নির্মিত হয়েছে। প্রাচীন চিট মোরং বৌদ্ধ মন্দির এবং মূর্তিগুলি এখানে দেখার মতো। আশেপাশের চন্দ্রগন, খাগড়াছড়ি এবং বান্দরবান স্থানগুলিও দর্শন করতে খুব ভাল।


সিলেট- সবুজ চা বাগানের সৌন্দর্য এবং সুরমা ভ্যালি এই জায়গার আকর্ষণকে বাড়িয়ে তোলে। চা ছাড়াও কমলা এবং আনারস গাছগুলি এখানে খুব সুন্দর দেখায়। এই উপত্যকায় শীতকালে প্রচুর সার্বিয়ান পাখি আসে। সিলেটের শ্রীমঙ্গল বাংলাদেশের চায়ের রাজধানী হিসাবে পরিচিত। চায়ের ক্ষেত্রগুলি মাইল ছড়িয়ে রয়েছে, যা দূর থেকে দৃশ্যমান।


সুন্দরবন-  ঢাকা থেকে প্রায় ৩২০ কিলোমিটার পশ্চিমে খুলনা নামে একটি জায়গা রয়েছে। ২০০০ বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে থাকা খুলনা বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বনজ হিসাবে পরিচিত। সুন্দরবন রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারদের দুর্গ। এগুলি এখানকার বনাঞ্চলে সহজেই ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। কুমির, চিতা, হরিণ, বানর, অজগর এবং বুনো ভালুকও এখানে দেখা যায়।


কুয়াকাটা - বাংলাদেশের পটুয়াখালীর  কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত একটি সুন্দর এবং প্রশান্ত সৈকত। এখানে সূর্য ওঠা এবং অস্ত যাওয়ার দৃশ্য সত্যিই অন্যরকম। শান্ত পরিবেশই এখানে পর্যটকদের আসার মূল কারণ।

No comments