Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

সুখবর ! জানুয়ারির মধ্যে চলে আসতে পারে দেশের প্রথম ভ্যাকসিন

দেশের জন্য সেরা খবর এসেছে। করোনার ভ্যাকসিন ডিসেম্বরের শেষের দিকে বা জানুয়ারীর প্রথম দিকে জরুরি অনুমোদন পেতে পারে। বৃহস্পতিবার দিল্লি-এইমস-এর পরিচালক ডঃ রণদীপ গুলেরিয়া এ তথ্য জানিয়েছেন।
ডাঃ গুলেরিয়া বলেছেন যে, ভারতে কয়েকটি ভ্য…



দেশের জন্য সেরা খবর এসেছে। করোনার ভ্যাকসিন ডিসেম্বরের শেষের দিকে বা জানুয়ারীর প্রথম দিকে জরুরি অনুমোদন পেতে পারে। বৃহস্পতিবার দিল্লি-এইমস-এর পরিচালক ডঃ রণদীপ গুলেরিয়া এ তথ্য জানিয়েছেন।


ডাঃ গুলেরিয়া বলেছেন যে, ভারতে কয়েকটি ভ্যাকসিন এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে চলছে। আমরা আশা করি ডিসেম্বরের শেষের দিকে বা জানুয়ারীর প্রথম দিকে, তাদের মধ্যে কেউ ড্রাগ নিয়ন্ত্রকের কাছ থেকে জরুরি অনুমোদন পাবেন। এর পরে টিকা শুরু হবে। আসলে ভারতে বর্তমানে ছয়টি ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চলছে। এর মধ্যে রয়েছে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা এবং ভারত বায়োটেক ভ্যাকসিন ফেজ -৩ ট্রায়াল।


শেষ পর্যায়ে ৬ টি ভ্যাকসিন পরীক্ষার মধ্যে মাত্র ২ টি বাকি ৪ টি ভ্যাকসিন কেবল মার্চের পরে আসবে

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন-কোভিশিল্ডের ফেজ -৩ ক্লিনিকাল ট্রায়ালগুলি আন্তর্জাতিকভাবে এসেছে। ভারতে এটি তৈরি করা হচ্ছে সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া (এসআইআই) এর প্রধান নির্বাহী আদর পুনাওয়ালা গত সপ্তাহে বলেছিলেন যে, তারা শীঘ্রই জরুরি অনুমোদনের জন্য আবেদনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।


ডাঃ গুলেরিয়া বৃহস্পতিবার বলেছেন যে, এখনও পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে বলা যেতে পারে যে, এই ভ্যাকসিনটি নিরাপদ ও কার্যকর। ভ্যাকসিনের সুরক্ষা এবং অনুষঙ্গগুলির সাথে কোনও আপস করা হবে না। ৭০ থেকে ৮০ হাজার স্বেচ্ছাসেবীদের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত কোনও গুরুতর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। উপাত্তগুলি পরামর্শ দেয় যে স্বল্প-মেয়াদী ভ্যাকসিন নিরাপদ।


চীন ক্লিনিকাল ট্রায়ালগুলি সম্পন্ন হওয়ার আগে তার ৪ এবং রাশিয়া ২ টি ভ্যাকসিন অনুমোদন পেয়েছিল। এরপরে যুক্তরাজ্য ২ ডিসেম্বর মার্কিন সংস্থা ফাইজার এবং তার জার্মান অংশীদার বায়েনটেকের উৎপাদিত এমআরএনএ ভ্যাকসিনকে জরুরি অনুমোদন দেয়।

No comments