Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

নিষেধাজ্ঞার পরেও গভীর রাত অবধি পোড়ানো হল আতশবাজি, বিপজ্জনক স্তরে পৌঁছলো দূষণ

দিল্লিতে নিষেধাজ্ঞার পরেও গভীর রাত অবধি আতশবাজি পোড়ানো হয়েছিল। লোকেরা এনজিটির নিয়মকে প্রকাশ্যে তিরস্কার করেছিল। আতশবাজির কারণে অনেক অঞ্চলের বায়ু মানের সূচকটি ১০০০ এর কাছাকাছি পৌঁছেছিল। দিল্লির পালম শহরে প্রকাশ্যে আতশবাজি পোড়…

 



 দিল্লিতে নিষেধাজ্ঞার পরেও গভীর রাত অবধি আতশবাজি পোড়ানো হয়েছিল। লোকেরা এনজিটির নিয়মকে প্রকাশ্যে তিরস্কার করেছিল। আতশবাজির কারণে অনেক অঞ্চলের বায়ু মানের সূচকটি ১০০০ এর কাছাকাছি পৌঁছেছিল। দিল্লির পালম শহরে প্রকাশ্যে আতশবাজি পোড়ানো হয়েছিল। যার কারণে রাস্তায় আতশবাজিও দেখা গেছে। দিল্লির পাণ্ডব নগরে নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও, সেখানে প্রচুর আতশবাজি পোড়ানো হয়েছিল, যার কারণে সর্বত্র ধোঁয়াশা ছিল।


আনন্দ বিহারে, একিউআই ৪৫১ থেকে ৮৮১, দ্বারকায় ৪৩০ থেকে ৮৯৬ এবং গাজিয়াবাদে ৪৫৬ থেকে ৯৯৯ এ উন্নীত হয়েছে। দ্বারকায় ৪৩০, আইটিওতে ৪৪৯, চাঁদনী চৌকে ৪১৪ এবং লোধি রোডে এয়ার কোয়ালিটি সূচক ৩৮৯ রেকর্ড করা হয়েছে। একিউআই স্তরের ৯৯৯ রেকর্ড করা হয়েছিল দিল্লির আরকে আশ্রম এবং মাদার ডেইরিতেও রাত ১২ টায়।


যদি একিউআই স্তর ৪০০ এর উপরে চলে যায়, এর অর্থ এটি শ্বাসকষ্টজনিত রোগের জন্য খুব বিপজ্জনক। এটি করোনার যুগে আরও ভয়ঙ্কর। শুধু দিল্লী নয় গোটা এনসিআর-এরও এই অবস্থা ছিল।


দিল্লি-এনসিআরে ৩০ নভেম্বর অবধি পটকাবাজি বিক্রি ও জ্বালানো নিষিদ্ধ। যারা বিধি ভঙ্গ করেন তাদের জন্য এক লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানার বিধানও রয়েছে। তবে দীপাবলি উপলক্ষে দিল্লিবাসীরা নিয়মকানুনে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং পটকা ফাটিয়ে দেয়।

No comments