Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

মহাবিশ্বের গন্ধ কেমন?

মহাবিশ্বের গন্ধ কেমন? এই প্রশ্নটি বেশিরভাগ মানুষের মনে কৌতূহল জাগায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে 'ইউ ডি স্পেস টিম' নামে একটি ইউরোপীয় সংস্থা মহাবিশ্বের গন্ধ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করতে সেন্ট বাজারে এনেছে। সেন্ট স্প্রে দেখায় যে পো…






 মহাবিশ্বের গন্ধ কেমন? এই প্রশ্নটি বেশিরভাগ মানুষের মনে কৌতূহল জাগায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে 'ইউ ডি স্পেস টিম' নামে একটি ইউরোপীয় সংস্থা মহাবিশ্বের গন্ধ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করতে সেন্ট বাজারে এনেছে। সেন্ট স্প্রে দেখায় যে পোড়া মাংসের টুকরোগুলি, রাস্পবেরি এবং রামের মতো গন্ধ পুরো মহাবিশ্ব জুড়ে রয়েছে। 






আমেরিকান স্পেস এজেন্সি নাসা কয়েক বছর আগে ল্যাবটিতে মহাবিশ্বের গন্ধ তৈরি করেছিল। এর উদ্দেশ্যটি ছিল আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন (আইএসএস) যাবার আগে মহাকাশচারীদের মহাকাশের অদ্ভুত গন্ধে রূপ দেওয়া। 




ইউ ডি দল যাত্রীদের উড়ন্ত অবস্থায় কথোপকথনের বিশদ বিবরণ দিয়েছেেন। এই ভিত্তিতে, সংস্থাটি অনুমান করেছিল যে মহাবিশ্বে কীরূপ গন্ধ থাকে , বিভিন্ন উপাদান মিশ্রিত করা এবং এর উপর ভিত্তি করে একটি সুগন্ধি তৈরি করা।




'পৃথিবীতে এরকম কখনও অনুভূত হয়নি' -


২০০৯ সালে নাসার 'ডিসকভারি' যানবাহন থেকে মহাকাশে উড়ে আসা টনি অ্যান্টোনেলি একটি সাক্ষাত্কারে বলেছিলেন, "গাড়িটি খোলার সাথে সাথেই আমার অনুভূতি উড়ে গেল। এক দশক দীর্ঘ প্রশিক্ষণের সময়, কেউ কীভাবে আমাকে বলেন নি যে স্থানটি কীভাবে গন্ধ পেয়েছে। পৃথিবীতে এমন গন্ধ আমি কখনই অনুভব করতে পারি নি। এটা খুব দ্রুত ছিল। দেখে মনে হয়েছিল যেন কেউ লোহার রড এবং এক টুকরো মাংস একসাথে পুড়িয়ে ফেলেছে। '






কোম্পানী ০৪ বছর সময় লেগেছিল ল্যাবের মহাবিশ্বের গন্ধ প্রস্তুত করতে। 


২৯ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে ১২০ মিলি বোতল কিনতে পারবেন (প্রায় ২১৭৫ টাকা) - 


২৫২৫-তে 'চাঁদের গন্ধ' পারফিউম পাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

No comments