Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

বাড়ি থেকে কাজের সময় অনুসরণ করুন এই ৭ টি স্বাস্থ্যকর রুটিন

আপনার কাজ করার শর্টকাট হতে পারে, তবে আপনার স্বাস্থ্যের জন্য কোনও শর্টকাট নেই। সুস্থ থাকতে আপনার পক্ষে স্বাস্থ্যকর ও পর্যাপ্ত খাবার এবং নিয়মিত ব্যায়াম করা খুব জরুরি। বিশেষত, বর্তমান সময়ে এই করোনভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পরিপ…








আপনার কাজ করার শর্টকাট হতে পারে, তবে আপনার স্বাস্থ্যের জন্য কোনও শর্টকাট নেই। সুস্থ থাকতে আপনার পক্ষে স্বাস্থ্যকর ও পর্যাপ্ত খাবার এবং নিয়মিত ব্যায়াম করা খুব জরুরি। বিশেষত, বর্তমান সময়ে এই করোনভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে আপনার জীবনযাত্রা এবং খাবারের উন্নতি করার খুব প্রয়োজন। আপনি যদি বাড়ি থেকে কাজ করছেন, তবে আপনি নিয়মিত স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে পারেন, তাহলে আসুন আপনাকে আজ বাড়ি থেকে কাজের সময় আপনাকে কী খাওয়া উচিৎ তা জানাই।



বাড়ি থেকে কাজের সময় ডায়েটের টিপস

১. আপনার শরীর থেকে ময়লা বের করার জন্য আপনার দেহে উপস্থিত ক্ষতিকারক টক্সিনগুলি অপসারণ করতে শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে হবে। এ জন্য প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে জল পান করুন। এর বাইরে নারকেল জলও পান করতে পারেন। মসৃণ এবং মিষ্টি পানীয় অল্প পরিমাণে খাবেন । এটি আপনার স্থূলত্বের সম্ভাবনা, টাইপ ল-২ ডায়াবেটিস, হৃদরোগ এবং আরও অনেক স্বাস্থ্য সমস্যা বাড়িয়ে তোলে।


২. আপনি যখন দীর্ঘক্ষণ কোথাও বসে বসে  কাজ করেন, তখন আপনি বেশি পরিমাণে জাঙ্ক ফুড খাওয়া শুরু করেন। জাঙ্ক খাবারগুলিতে উচ্চ পরিমাণে গ্লুকোজ পাওয়া যায়, যার কারণে মস্তিষ্কের অবিচ্ছিন্নভাবে গ্লুকোজ ব্যবহার আপনার তাৎক্ষণিক গ্লুকোজ নিঃসরণের জন্য শরীরে অসুবিধা সৃষ্টি করতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে যদি আপনি প্রচুর প্রক্রিয়াজাত খাবার যেমন বিস্কুট, রুটি বা চিপস গ্রহণ করেন তবে আপনারও স্বাস্থ্যকর খাবার বেছে নেওয়া উচিৎ।



৩. প্রাতঃরাশ, মধ্যাহ্নভোজন এবং রাতের খাবারের জন্য একটি ভাল এবং নিয়মিত সময় পরিকল্পনা করুন। আপনার ডায়েটের মধ্যে ছোট ছোট ব্যবধান রয়েছে কিনা তাও নিশ্চিত করুন। এটি উচ্চ ক্যালোরি গ্রহণ এড়াতে আপনাকে সহায়তা করে।



৪. আপনার চিন্তাভাবনা করে খাবার খাওয়া উচিৎ। আপনি ক্ষুধার্ত হলেই খাবেন। আপনার বিরতি দরকার বলে নয়। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে আপনার পুষ্টিকর এবং সুষম খাদ্য পরিকল্পনা করা উচিৎ যা তৃপ্তি দেয়, ফোকাস বাড়ায় এবং আপনাকে আরও উৎপাদনশীল করে তোলে।



৫. আপনার পেটের স্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য আপনার অন্ত্রের স্বাস্থ্যকর হওয়া খুব জরুরি। এর জন্য আপনাকে অবশ্যই প্রোবায়োটিক জাতীয় খাবার যেমন দই বা বাটার মিল্ক এবং ফাইবারযুক্ত খাবার খেতে হবে। বিশেষত ফাইবার আপনার অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়াগুলির জ্বালানী হিসাবে কাজ করে।


৬. "ওয়ার্ক ফ্রম হোম" চলাকালীন আপনার শরীরকে সচল রাখার চেষ্টা করুন, কারণ ওয়ার্কফ্রম হোম আপনাকে শারীরিকভাবে নিষ্ক্রিয় করার জন্য কাজ করে। এমন পরিস্থিতিতে বাড়িতে নিজেকে সচল রাখতে স্কোয়াট, দ্রুত হাঁটা, জগিং, কার্ডিও, যোগ ইত্যাদি অনুশীলন করুন।



৭. এইরকম পরিস্থিতিতে আপনার ডায়েটে প্রচুর পরিমাণে গুল্ম এবং মশলা ব্যবহার করা উচিৎ। অনেকগুলি অবিশ্বাস্যভাবে স্বাস্থ্যকর ঔষধি এবং মশলা উপস্থিত রয়েছে যেমন আদা এবং হলুদ শক্তিশালী প্রদাহজনক এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যে পূর্ণ, যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য অনেকগুলি সুবিধা প্রদান করে।



করোনভাইরাস মহামারী এখন আপনার জীবনের একটি অঙ্গ হয়ে উঠেছে এবং আপনি যদি গবেষণায় বিশ্বাসী হন তবে এটি দীর্ঘকালীন জীবনে প্রভাব ফেলতে পারে। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে আপনার স্বাস্থ্যের বিশেষ যত্ন নেওয়া দরকার।

No comments