Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

আধিপত্যের লড়াই শুরু তৃণমূল কংগ্রেসে

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগে জঙ্গলমহলে রাজনৈতিক আন্দোলন শুরু হয়েছে। এবার আধিপত্যের লড়াই দেখা যাচ্ছে ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসে। এর সর্বশেষ উদাহরণ হলেন দলের বিধায়ক ও পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, যিনি মুখ্যমন্ত্রী মমত…



২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগে জঙ্গলমহলে রাজনৈতিক আন্দোলন শুরু হয়েছে। এবার আধিপত্যের লড়াই দেখা যাচ্ছে ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসে। এর সর্বশেষ উদাহরণ হলেন দলের বিধায়ক ও পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, যিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পোস্টার ছাড়াই পশ্চিম মেদিনীপুরে অনেক জায়গায় সভা করেছেন। তবে পোস্টারে কেবল তার ছবি রয়েছে। এই ঘটনা স্বাভাবিকভাবেই উদ্বেগ বাড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূলের।


শুধু তাই নয়, আগের দিন তিনি হুল দিবসে রাজ্য সরকারের অনুষ্ঠানে যোগ দেননি, তবে আদিবাসীদের অন্যান্য কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন। পার্টির সাধারণ সম্পাদক পার্থ চ্যাটার্জী হুল দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী কেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন না এমন লোকেরা জিজ্ঞাসা করলে বিব্রতবোধের মুখোমুখি হয়েছিলেন। পার্থ চ্যাটার্জি বলেছিলেন, "যদি তিনি আসতেন তবে আরও ভাল হত।"


তবে শুভেন্দু দল থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে নিয়েছেন এমনটাই প্রথম নয়। তিনি বেশ কয়েকটি দলীয় সভা ও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন না। অনেকে বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন যে শুভেন্দু অধিকারী শেষ পর্যন্ত তৃণমূল ছেড়ে বিজেপির সাথে যোগ দেবেন। তবে শুভেন্দুর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত অনিশ্চিত। তাঁর নিকটবর্তী কেউই ইঙ্গিত দেয়নি যে তিনি বিজেপিতে যোগ দিতে যাচ্ছেন। বর্তমানে শুভেন্দু মেদিনীপুরে নিজের অবস্থান জোরদার করতে প্রস্তুত। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাগ্নে ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পোস্টার যেখানে দেখা গেছে সেখানেই শুভেন্দু অধিকারীর পোস্টার তাঁর সমর্থকরা রেখেছেন।


পোস্টারে শুভেন্দুর নাম লেখা ছিল রাজ্যের একজন সমাজকর্মী হিসাবে। এতে এলাকায় আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ঘটনাটি সম্পর্কে অবগত হওয়ার পরে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেছিলেন। তিনি শুভেন্দু অধিকারীর বাবা এবং এমপি শিশির অধিকারির স্ত্রীর স্বাস্থ্যের অবস্থা সম্পর্কে খোঁজখবর নেন।


মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেন্দু অধিকারীকে তৃণমূল কংগ্রেসে ধরে রাখতে চান। তবে শুভেন্দুকে দলে রাখতে বা রাখার তার ইচ্ছা পূরণ হবে কি না, তা ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে দেখা যাবে।

No comments