Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

করোনার ভয়ে টাকা ধুচ্ছেন দক্ষিণ কোরিয়ার লোকেরা!

করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য চিহ্নগুলি মুছে ফেলার জন্য একটি ওয়াশিং মেশিনে নোট রাখার পর দক্ষিণ কোরিয়ান এক ব্যাক্তি জানতে পারে যে, মানি লন্ডারিং কোনও ভাল ধারণা নয়।
 কর্মকর্তারা বলছেন যে ক্ষয়ক্ষতি যথেষ্ট হয়েছিল।

 সিওলের নিকটবর্তী …




  করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য চিহ্নগুলি মুছে ফেলার জন্য একটি ওয়াশিং মেশিনে নোট রাখার পর দক্ষিণ কোরিয়ান এক ব্যাক্তি জানতে পারে যে, মানি লন্ডারিং কোনও ভাল ধারণা নয়।
 কর্মকর্তারা বলছেন যে ক্ষয়ক্ষতি যথেষ্ট হয়েছিল।

 সিওলের নিকটবর্তী আনসান শহরে বসবাসকারী ব্যক্তি এই বছরের শুরুর দিকে একটি ওয়াশিং মেশিনে ৫০,০০০-উইনের একটি অনির্ধারিত বিল রেখেছিলেন।  কিছু অর্থ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল এবং ব্যক্তি নতুন টাকা বিনিময় হতে পারে কিনা তা জানতে ব্যাঙ্ক অফ কোরিয়ায় পৌঁছেছিলেন।
 ব্যাঙ্ক অফ কোরিয়া এক বিবৃতিতে জানায়, ক্ষতিগ্রস্ত, বিকৃত ও দূষিত নোটের বিনিময় সম্পর্কে ব্যাংক বিধি মোতাবেক ওই ব্যক্তিকে মোট নতুন মুদ্রা প্রায় ২৩ মিলিয়ন ওন (১৯,৩২০ ডলার) সরবরাহ করা হয়েছিল।
 ব্যাংকের কর্মকর্তা সিও জিউউউন বলেছিলেন যে অর্ধমূল্যের বিনিময়ে ব্যাংকটি বিনিময় করা ৫০,০০০- বিলের সংখ্যা ছিল ৫০৭। তিনি বলেছিলেন যে ক্ষতি খুব বেশি হওয়ায় ব্যাংক যে বিলগুলি বিনিময় করতে পারে না তা গণনা করে না।

 তিনি বলেছিলেন যে ব্যাঙ্ক আধিকারিকরা ঠিক জানেন না যে ওই ব্যক্তির কত টাকা ধোয়ার চেষ্টা করেছিলেন।
 তিনি বলেছিলেন যে ক্ষয়টি এখনও "বিবেচ্য" হবে।
 এই জাতীয় পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কতটা বিনিময় করা উচিত তা নির্ভর করে নোট কতটা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তার উপর।  ক্ষতির পরিমাণটি যদি সর্বনিম্ন হয় তবে ব্যাংক মুদ্রা মূল্যে নতুন মুদ্রা সরবরাহ করতে পারে তবে ক্ষতিটি উল্লেখযোগ্য হলে অর্ধমূল্যে বা কোনো বিনিময় না ও হতে পারে।


 ব্যক্তির কেবল পরিবারের নাম ইওম দ্বারা সনাক্ত করা হয়েছে।  ব্যাংক কর্মকর্তারা গোপনীয়তা আইনের উল্লেখ করে আর কোনও ব্যক্তিগত তথ্য দেননি।

 ব্যাঙ্কের মতে, আরেক ব্যক্তি, কিম নামে পরিচিত, এই বছরের শুরুর দিকে একই ধরণের করোনা ভাইরাস নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করার জন্য একটি মাইক্রোওয়েভে টাকা রেখেছিলেন।  ব্যাংক ৫.২ মিলিয়ন উইন ৪.৭ মূল্যমানের নতুন মুদ্রার সাথে কিমের ক্ষতিগ্রস্থ অর্থের বিনিময় করেছে। তিনি  বলেছিলেন কিমের ক্ষতি খুব বেশি ছিল না।
 দক্ষিণ কোরিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক জনসাধারণকে মাইক্রোওয়েভে নোট স্থাপন এড়াতে পরামর্শ দিয়েছে কারণ  এর নির্বীকরণের প্রভাবটি অস্পষ্ট।  দক্ষিণ কোরিয়ার অ্যান্টি-ভাইরাস নির্দেশিকাতে কোনও ওয়াশিং মেশিনে জীবাণুমুক্ত অর্থ অন্তর্ভুক্ত নয়।

No comments