Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

মেফ্লাই - এই প্রানীদের জীবন একদিনের!

পিঙ্কি নস্কর

গত কয়েকশো বছরে ইউরোপের ভূদৃশ্য নাটকীয় ভাবে পরিবর্তিত হয়েছে। কিন্তু, এখনো ইউরোপের অনেক অঞ্চল জীব বৈচিত্রের জন্য স্বর্গ। প্রতিবছর ইউরোপের স্বতন্ত্র জলবায়ু এক অসাধারণ ঘটনার জন্ম দেয়। টিসজা নদী, হাঙ্গেরি।
         গ…


পিঙ্কি নস্কর

গত কয়েকশো বছরে ইউরোপের ভূদৃশ্য নাটকীয় ভাবে পরিবর্তিত হয়েছে। কিন্তু, এখনো ইউরোপের অনেক অঞ্চল জীব বৈচিত্রের জন্য স্বর্গ। প্রতিবছর ইউরোপের স্বতন্ত্র জলবায়ু এক অসাধারণ ঘটনার জন্ম দেয়। টিসজা নদী, হাঙ্গেরি।
         গ্রীষ্মের মাঝামাঝি সময়ে, যখন দিনের দৈর্ঘ্য ও জলের তাপমাত্রা অনুকূলে থাকে- নদীটিতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মেফ্লাইদের উত্থান ঘটে। তিন বছর নদীর তলানিতে নিম্ফ হিসেবে কাটানোর পর, পুরুষরা প্রথমে জলের উপরে দৃশ্যমান হয়। নতুন পাখায় ভর করে এরা নদী পাড়ে পৌছায় এবং শেষবারের মতো খোলস পরিবর্তন করে। এখন তারা যৌনতায় সক্ষম এবং এখন তাদের জীবনের একমাত্র লক্ষ্য বংশবৃদ্ধি।




















          প্রত্যেক পুরুষের জীবনের মাত্র তিন ঘন্টা বাকি। এমন সময় নারীরা জলের উপর ভেসে উঠতে থাকে। নারীদের গর্ভস্থ ডিমগুলো নিষিক্ত করতে পুরুষদের মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হয়। প্রতিটি নারীই এখানে পুরুষদের কাছে মহামূল্যবান। পুরুষদের জীবনে যখন মাত্র কয়েক মিনিট অবশিষ্ট থাকে, প্রতিযোগিতা চরম আকার ধারণ করে। এবং কিছুক্ষণের মধ্যেই সব পুরুষের জীবন সায়াহ্ন ঘটে।
          কিন্তু নারীদের যাত্রা মাত্র শুরু হয়েছে। নিষিক্ত ডিম পেটে নিয়ে এরা উজানের দিকে রওনা হয়। এ যাত্রা ৫ কিলো মিটার পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। ডিম নির্গমনের স্থলে, প্রায় ১ কোটি নারী মেফ্লাই একত্রিত হয়। প্রচন্ড ক্লান্তি নিয়ে নারীরা এক এক করে নদীর বুকে লুটিয়ে পড়তে থাকে। এবং জলের স্পর্শ পাওয়া মাত্র প্রত্যেকে হাজার হাজার ডিম ছেড়ে দেয়। ধীরে ধীরে ডুবে যাওয়ার সময় ডিমগুলো স্রোতের টানে ভাটির দিকে এগিয়ে চলে। ফলে, পরবর্তী প্রজনন মৌসুমে যেখানে এদের পিতা-মাতার উত্থান হয়েছিল, ঠিক সেখান থেকেই এরা উত্থিত হয়।
           প্রথম মেফ্লাই-এর উত্থানের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই, সকল মেফ্লাই চিরবিদায় নেয়। কিন্তু, এই অল্প সময়ের মধ্যেই, এরা জীবনের উদ্দেশ্য সম্পন্ন করে ফেলে। মানব জীবনের সময় সংক্ষিপ্ত নয় প্রয়োজন শুধু সঠিক ব্যবহারের। যারা সময় সঠিক ব্যবহারে অক্ষম তারাই সময় অল্প বলে অভিযোগ করে।

No comments