Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

প্রাণীদের সামাজিক দূরত্ব সম্পর্কে জানেন?

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সংক্রামক ব্যাধি রোগের কার্যকরী হাতিয়ার। মানুষের কাছে বিষয়টি খুব পুরনো না হলেও বিভিন্ন প্রাণী এটি মেনে চলছে সম্ভবত কোটি কোটি বছর ধরে। অনুজীবে আক্রান্ত পিঁপড়ে ঘরের বাইরে অবস্থান করে। ফলে, দলের …


        সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সংক্রামক ব্যাধি রোগের কার্যকরী হাতিয়ার। মানুষের কাছে বিষয়টি খুব পুরনো না হলেও বিভিন্ন প্রাণী এটি মেনে চলছে সম্ভবত কোটি কোটি বছর ধরে। অনুজীবে আক্রান্ত পিঁপড়ে ঘরের বাইরে অবস্থান করে। ফলে, দলের অন্যান্যদের মাঝে ইনফেকশন ছড়ায় না। মৌচাকে আক্রান্ত লার্ভা ফেরোমন্স (pheromones) নামক এক প্রকার রাসায়নিক নির্গমন করে। প্রাপ্তবয়স্করা এই ফেরোমন্সের গন্ধ শনাক্ত করতে পারে। গন্ধ পাওয়া মাত্র আক্রান্ত লার্ভাকে চাক থেকে সরিয়ে ফেলা হয়। ফলে পুরো কলোনি ইনফেকশন থেকে রক্ষা পায়। আক্রান্ত প্রাপ্তবয়স্ক মৌমাছিরা নিজেই অ্যান্টিবায়োটিক যুক্ত মধু করে পান করে। যদি তাতে কাজ না হয়, দলের অন্যদের রক্ষা করতে নিজেই আলাদা হয়ে যায়। মৃত সদস্যদের সব সময় চাক থেকে দূরে ফেলা হয় ইনফেকশন না ছড়ানো নিশ্চিত করতে।

         ১৯৬৬ সালে   Mc Gregor নামের এক  শিপাঞ্জি পোলিওতে আক্রান্ত হয়েছিল। সে দলের অন্যদের দ্বারা আক্রমণের শিকার হয় এবং দলের বাইরে থাকতে বাধ্য হয়। ইনফেকশন থেকে সেরে উঠলে অনেকেই পুনরায় দলে জায়গা ফিরে পায়। সংক্রমিত অবস্থায় ইঁদুর নিজেকে দল থেকে আলাদা করে ফেলে। অন্য ক্ষেত্রে স্ত্রী ইঁদুর পুরুষ ইঁদুরের মূত্র থেকে অণুজীবের সংক্রমণ বুঝতে পারে। স্ত্রীরা তখন আক্রান্ত পুরুষকে বর্জন করে নতুন স্বাস্থ্যবান পুরুষ বেছে নেয়।
























      আক্রান্ত ক্যারিবিয়ান স্পাইনি লবস্টার এক প্রকার রাসায়নিক সংকেত ছড়িয়ে দেয়। যা দলের অন্যান্য সদস্যরা ইনফেকশনের শুরুতেই বুঝতে পারে। অন্যরা অসুস্থ হওয়ার আগেই আক্রান্ত লবস্টার কে আলাদা করে দেয়া হয়। কিছু কিছু ভাইরাসে লবস্টারের অসুস্থ হতে ৮ সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগে। কিন্তু, অন্য লবস্টাররা চতুর্থ সপ্তাহেই এই ভাইরাসের উপস্থিতি বুঝতে পারে।  বাচ্চা জন্মদানের পূর্বে কিছু গাভী নিজেকে দল থেকে আলাদা করে ফেলে। এটি নবাগত বাছুরকে দলের অন্য সদস্যদের দ্বারা আক্রান্ত হওয়া থেকে রক্ষা করে।

        স্ত্রী মাছেরা সাধারণত পরজীবী মুক্ত পুরুষদের বেছে নেয়। তারা দেখে এবং রাসায়নিক সংকেত দ্বারা আক্রান্ত পুরুষদের চিহ্নিত করে। মান্ড্রিল নামক এক প্রকার বানর নিজের পরিবারের কেউ আক্রান্ত হলে সেবা করে। কিন্তু, পরিবারের বাইরের আক্রান্তদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখে। উদাহরণগুলো প্রমাণ করে প্রাণীরা নিজের এবং পরিবারের জীবন রক্ষায় কতটা তৎপর।

পৃথিবীর সবচেয়ে বুদ্ধিমান প্রাণীটি অণুজীব থেকে নিজেদের রক্ষায় কতটা তৎপর?
     
      শিপ্রা হালদার

No comments