মেয়ের হত্যাকারী দের কঠোর শাস্তির দাবিতে মৌন মিছিলে পা মিলান মৃতার বাবা, ভাই, বোন - Vice Daily

Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

মেয়ের হত্যাকারী দের কঠোর শাস্তির দাবিতে মৌন মিছিলে পা মিলান মৃতার বাবা, ভাই, বোন

নিজস্ব প্রতিনিধি,১৬মেঃ-পনের দাবিতে মেয়ের হত্যাকারী দের কঠোর শাস্তির দাবিতে মৌন মিছিলে পা মিলান মৃতার বাবা, ভাই, বোন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইটাহারের রাস্তায়। উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার ৯ মে ইটাহার উত্তর পাড়ার বাসিন্দা চাঁচলের নৈকান্দা হা…




নিজস্ব প্রতিনিধি,১৬মেঃ- পনের দাবিতে মেয়ের হত্যাকারী দের কঠোর শাস্তির দাবিতে মৌন মিছিলে পা মিলান মৃতার বাবা, ভাই, বোন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইটাহারের রাস্তায়। উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার ৯ মে ইটাহার উত্তর পাড়ার বাসিন্দা চাঁচলের নৈকান্দা হাইমাদ্রাসার শিক্ষক তফাজ্জল হুসেন তার স্ত্রী আয়েষা সিদ্দিকাকে পারিবারিক অশান্তির জেরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায়। বিকাল নাগাদ বাড়ির পরিচারিকা কাজে আসলে দেখে আয়েশা রক্তাক্ত অবস্থ্যায় বিছানায় পরে আছে এবং তফাজ্জল পাশে দাঁড়িয়ে ছিল তারপর আয়েশাকে ধরা ধরি করে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। জানা যায় আট বছর আগে হরিরামপুর থানার লৌহুচর গ্রামের বাসিন্দা সৈয়দ আজগর আলীর মেয়ে আয়েষা সিদ্দিকার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল ইটাহারের বাসিন্দা তোফাজ্জল হুসেন এর। দুই পুত্র শন্তানের সংসারে প্রতিনিয়ত বিবাদ লেগেই থাকত। অকারনেই শ্বশুড়বাড়িতে পনের দাবি করত, এবং শশুর বারি থেকে টাকাও দিত কিন্তু অভিযুক্ত শিখক অতিরিক্ত টাকা চায় কিছু দিন আগে টাকা না পেয়ে বধুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায় বলে জানা যায়, যদিও ইটাহার থানার পুলিশ মৃতার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করে। অভিযুক্ত আরো তিন জন অভিযুক্ত শিক্ষকের পরিবারের লোক পলাতক পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে দাবি, শিক্ষকের এই নক্কার জনক ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন ইটাহার তথা জেলার সর্বস্তরের মানুষ। অভিযুক্ত শিক্ষক ও তার পরিবারের লোকেদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবিতে হাতে মোমবাতি,কালো বেচ পরে মৃত আয়েশার বাবা সৈয়দ আজগর আলী, ভাই সৈয়দ সানাউল রেজা, বোন নাসিমা খাতুন প্রিয়া সহ ইটাহারের সাধারন মানুষ মৌনমিছিল করে ইটাহারের রাস্তায়। মৃতা গৃহবধু আয়েশার বাবা সৈয়দ আজগর আলী বলেন, আমার মেয়েকে তার স্বামী তফাজ্জল হুসেন খুন করেছে। তার সাথে আর যারা দশি তফাজ্জল এর জামাই বাবু মাজেদুর রহমান , দিদি সহ আরো এক জন। সকলে মিলে আমার মেয়ের উপরে অত্যাচার করতো মারধোর করতো পনের দাবিতে,তাই মূল অভিযুক্ত কে পুলিস গ্রেপ্তার করলেও বাকি তিন জন কে এখনো গ্রেপ্তার করেনি পুলিস, তাই তিনজনকে গ্রেপ্তার করুক পুলিস আমি সকলের ফাঁসির দাবি জানাই, যাতে আর কোন বাবার মেয়ের এই ধরনের মৃত্যু না হয়, দোষীদের গ্রেপ্তার না করলে আগামী দিনে পুলিস প্রশাসনের বিরুদ্ধে বৃহত্তর আন্দোলনে নামা হবে সর্ব স্তরের মানুষের সহযোগিতাই ইটাহারে।


from বাংলা খবর http://bit.ly/2JIX6hy

No comments