মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম আয়োজিত মিলন উৎসবের উদ্বোধন - Vice Daily

Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Weather Location

Breaking News:

latest

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম আয়োজিত মিলন উৎসবের উদ্বোধন

বাংলার সেরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম আয়োজিত মিলন উৎসবের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলো। চলবে ১ ফেব্রিুয়ারি থেকে ৪ ফেব্রিুয়ারি ২০১৯ পার্ক সার্কাস ময়দানে।

বাংলার কল্যাণে অন…




বাংলার সেরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম আয়োজিত মিলন উৎসবের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলো। চলবে ১ ফেব্রিুয়ারি থেকে ৪ ফেব্রিুয়ারি ২০১৯ পার্ক সার্কাস ময়দানে।

বাংলার কল্যাণে অন্যতম দক্ষ প্রশাসনিক আধিকারিক ডা. পি বি সালিম সাহেবের আন্তরিক প্রচেষ্টায় গত বছরের মতো এবছরেও মেঘা জব ফেয়ার, শিক্ষা সচেতনতা শিবির, চাকরি জন্য কেরিয়ার কাউন্সিলিং, স্পট চাকরির জন্য ক্যাম্পাশিং, মেডিকেল প্যাভিলিয়নে স্বাস্থ্য পরীক্ষার শিবির, বাংলার বিভিন্ন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিজস্ব হস্তশিল্প, প্রতিদিন বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কচিকাঁচাদের জন্যে বিশেষ আয়োজনে কিড জোন, ফুড জোন, হাতের তৈরি নানান শিল্পের পরিদর্শন ও বিক্রির জন্য বিশেষ আয়োজন করা হয়েছে এই মহা মিলন উৎসবে। এছাড়ও থাকছে বিভিন্ন বিষয়ের ২৩০ এর উপর স্টল।

পার্ক সার্কাস ময়দানে বৈচিত্রের মাঝে মহামিলনের উৎসবের শুভ সূচনা করলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মন্ত্রী ও কলকাতা পৌরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। বিশেষ অতিথি হয়ে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের চার মন্ত্রী জাভেদ আহমেদ খান, গিয়াস উদ্দিন মোল্লা ও সিদ্দিকুল্ল চৌধুরী, সুজিৎ বোস। 

উপস্থিত ছিলেন সাংসদ নাদিমুল হক ও সাংসদ আহমেদ হাসান ইমরান।
এছাড়াও থাকবেন বিবেক কুমার, আই.এ.এস, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রধান সচিব, তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগ এবং সংখ্যালঘু বিষয়ক ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ।

পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন বিত্ত নিগমের জেনারেল ম্যানেজার শামসুর রহমান ও মোহাম্মদ নোকি সহ বিত্ত নিগমের অন্যান্য আধিকারিক ও কর্মচারীবৃন্দও উপস্থিত হয়ে এই মহা আয়োজন সফল করতে পারলেন।

মেডিকেল প্যাভিলিয়নে পরিষেবা দান করবে যে সব প্রতিষ্ঠান জি ডি হসপিটাল এন্ড ডায়বেটিস ইন্সটিটিউট, সর্বভারতীয় নবচেতনা, ন্যাশানাল মেডিকেল কলেজ, আই কেয়ার এন্ড রিসার্চ সেন্টার, কার্ডিওলজিস্ট নারায়ণ হেল্থ, ইউনিসেফ, ট্রাইবেকা কেয়ার প্রভৃতি।

আশা করা হচ্ছে কয়েক হাজার আগ্রহী চাকরি প্রার্থীদের উপচে পড়া ভিড়ও চোখে পড়বে এবছর। গত বছর মিলন উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছিল ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ পর্যন্ত। গত বছর মিলন উৎসবে বিভিন্ন বিষয়ে ৯৯ টি স্টল ছিল।

খ্রিস্টান, মুসলিম, বৌদ্ধ, জৈন প্রভৃতি সম্প্রদায়ের লোকেরা আলাদা আলাদা দিনে নিজেদের সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানও করতে পেরেছিলেন এবছরেও থাকছে এই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন।

গত বছর ভিড় হয়েছিল বিদেশে পড়তে যাওয়ার খোজ নিতে। বিশেষ করে মেডিক্যাল শিক্ষার কোথায় কি সুযোগ সুবিধা আছে তা জানার আগ্রহও দেখা গিয়েছিল।

সারা মেলা জুড়ে পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের সুবিধাভোগীদের তৈরি নানা ধরনের অলঙ্কার, পোশাক প্রদর্শন ও পিঠে-পুলি বিক্রি হবে বিভিন্ন স্টলে। এই চার দিনেই মিলন উৎসব জমে উঠবে এবং মানুষের উৎসহ চোখে পড়বে।

পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের চেয়ারম্যান ও সংখ্যালঘু বিষয়াক ও মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরের সচিব ডা. পি বি সালিম সাহেব জানালেন, নিগমের কাছ থেকে ক্ষুদ্র ও মেয়াদি ঋণ নিয়ে যারা ব্যবসা করে স্বনির্ভর হয়েছেন, তাঁরা এখানে পণ্য সম্ভার সাজিয়ে তুলবেন। তাঁদের পণ্য কিনতে মানুষ স্টলগুলিতে হাজির হবেন। বিক্রিবাটাও ভাল হবে। নিগমের মেলা করার মূল লক্ষ্য মানুষের কাছে এই সব প্রান্তিক মানুষের সৃষ্টিকর্ম তুলে ধরা এবং তার বিপণনের ব্যবস্থা করা। এবছর প্রচুর  জনসমাগম হবে এবং ক্রেতা আসবেন যা আমাদের উৎসাহিত করবে।

সর্বভারতীয় নবচেতনার উদ্যোগে মিলন উৎসবে মেডিকেল প্যাভিলিয়নে ১ থেকে ৪ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য পরীক্ষার শিবিরে থাকবেন রাজ্যের নাম করা বিভিন্ন বিভাগের ডাক্তারা সুচিকিৎসা করবেন।

হৃদ রুগীদেরকে সুচিকিৎসা দেওয়ার জন্য ১ ফেব্রুয়ারি উপস্থিত থাকছেন লিটল হার্ট ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট কার্ডিয়াক সার্জেন ড. আমানুল হক এবং তাঁর টিম।


৩ ফেব্রুয়ারি থাকছেন শিশুদের প্রখ্যাত ডাক্তার জামাল খান ও ডাক্তার এস এন রায়।

৪ ফেব্রুয়ারি থাকছেন স্পাইনাল সার্জেন প্রখ্যাত ডাক্তার আরবার আহমেদ। আর থাকছেন গাইনী সার্জেন ডাক্তার হুমা ফারহীন।

সর্বভারতীয় নবচেতনার পক্ষে উপস্থিত থাকবেন ড. হুমায়ুন কবীর, ড. আবুল হোসেন বিশ্বাস, ডা. নাবিলা খান, ডক্টর পারভেজ আহমেদ খান।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-এর অনুপ্রেরণায় পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম এর উদ্যোগে ১ ফ্রেব্রুয়ারি থেকে ৪ ফ্রেব্রুয়ারি, ২০১৯ পর্যন্ত পার্ক সার্কাস ময়দানে আয়োজিত হচ্ছে “মিলন উৎসব ২০১৯”।

পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিজস্ব কুটির শিল্প, খাবারদাবার এবং সংস্কৃতির মেলবন্ধন ঘটছে এই মিলন উৎসবে। এছাড়াও এই উৎসবে থাকছে কেরিয়ার কাউন্সেলিং ও স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবির। প্রতিদিন থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

প্রতি বছরের মতোই এবছরও সব আয়োজন থাকছে। পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের উদ্যোগে বিদেশে চাকরি পেতে কোথায় কী করতে হবে তা জানার জন্য চলে আসুন পার্ক সার্কাসে আয়োজিত মিলন উৎসবে।

আগামী ৩ তারিখ রবিবার থাকছে বিশেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান "একটি কুসুম" এদিন সঙ্গীত পরিবেশন করবেন নুপূর কাজী, আফরীন কাজী, আমির আলি, নাজমুল হক, পলাশ চৌধুরী, স্বরচিত কবিতা পড়বেন "উদার আকাশ" পত্রিকার সম্পাদক ফারুক আহমেদ।
উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট কবি সুবোধ সরকার ও “পুবের কলম” পত্রিকার সম্পাদক আহমেদ হাসান ইমরান এই অনুষ্ঠানের আয়োজক।

মিলন উৎসব সার্থক করতে সকলকেই আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, ডা. পি. বি. সেলিম, আই.এ.এস., সচিব, সংখ্যালঘু বিষয়ক ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ পশ্চিমবঙ্গ সরকার এবং চেয়ারম্যান, পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন বিত্ত নিগম। মৃগাঙ্ক বিশ্বাস, ম্যানেজিং ডিরেক্টর, পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন বিত্ত নিগম।

পার্ক সার্কাস ময়দানে বৈচিত্রের মাঝে মহামিলনের এই মিলন উৎসবেকে সার্বিক সফল করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করছেন ডা. পি. বি. সেলিম সাহেব।
এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন বিত্ত নিগমের অন্যান্য আধিকারিক ও কর্মচারীবৃন্দ।

মিলন উৎসবে বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকছে ফ্রি কেরিয়ার কাউন্সেলিং এবং
বেকারদের চাকরি দেওয়ার সুপরামর্শ।

মিলন উৎসব উদ্বোধনের পর স্বাগত ভাষণের মঞ্চে স্কলারশিপ, ঋণ, প্রভৃতি প্রদান করা হবে।

এবছরেও মিলন উৎসবে আল আমীন মিশনের স্টল থাকছে। আল আমীন মিশনের পত্র-পত্রিকার সঙ্গে উদার আকাশ পত্রিকার বিশেষ সংখ্যাও পাওয়া যাবে।

No comments