Top Ad 728x90

Sunday, 2 December 2018

, ,

অস্থায়ী অঙ্গনওয়ারীর পর উন্নতমানের পার্ক নির্মানের জন্য উদ্যোগী কালিয়াগঞ্জ পৌরসভা




৩০ বছরের বেশি পূরানো পৌরসভা হলেও সেই ভাবে উন্নতম মানের পার্ক গড়ে উঠেনি উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জের পৌরসভার মধ্যে । ফলে এলাকার কচিকাচা থেকে শুরু করে সাধারন মানূষের মনরোঞ্চজনের কিছুই ছিল না বল্লেই চলে। ফলে সমস্যায় পড়তে হতো সকলকেই। রাজ্যের সাথে সাথে কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়নের সাথে পালাবদল করে শাসক দলের দখলে আসে। এরপর থেকে রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরনায় একাধিক উন্নয়ন মূলক কাজ শুরু হয় পৌরসভার অন্তর্গত। পৌরপ্রধান কার্তিক চন্দ্র পালের উদ্যোগে দুটি পার্ক তৈরীর উদ্যোগ গ্রহন করা হয় একটি শিশুদের জন্য আধুনিক মানের পার্ক ও অপরটি সাধারন মানুষের জন্য বিনোদনের একটি উন্নত মানের পার্ক গরাড় উদ্যোগ গ্রহন করা হয়। শহরের হাসপাতাল পাড়া এলাকার তিস্তা কলোনীতে ৫ বিঘা জমিতে ২ কোটি টাকা ব্যায়ে বিনোদন পার্ক অপরদিকে ১ কোটি টাকা ব্যেয়ে শেঠ কলোনীতে শিশুদের জন্য পার্ক তৈরীর কাজ চলছে। রাজ্য সরকারের পৌর দপ্তর থেকে বরাদ্য অর্থেই এই উন্নতমানের পার্ক দুটির কাজ শুরু হয়েছে। পার্ক দুটির সুন্দর্যায়নের সাথে সাথে নির্মান কাজ শেষ হলে দীর্ঘ দিন থেকে বঞ্চিত কালিয়াগঞ্জ মানুষের মনরঞ্জনের যায়গা পাবে। এই পার্ক দুটির নির্মান কাজ শুরু হবার কারনে শহরের কচিকাচা থেকে সাধারন মানুষ আনন্দিত ।

এই বিষয়ে কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার পৌরপ্রধান কার্তিক চন্দ্র পাল জানান, মা মাটি মানুষের পৌরবোর্ড গঠন হবার পড় থেকে শহরের একাধিক উন্নয়ন মূলক কাজ শুরু হয়েছে। তার সাথে দুটি উন্নত মানের পার্ক তৈরীর কাজ শুরু হইয়েছে। বিগত দিনের পৌর বোরড়ড পার্ক তৈরী করেনি ।তাই রাজ্য  সরকারের পৌর দপ্তরের অধিনে একটি ২কোটি টাকা ব্যায়ে অপরটি ১ কোটি টাকা ব্যায়ে পার্ক তৈরীর কাজ শুরু হয়েছে।

এদিনে কৃতিত্ব জয়সোয়াল নামে এক শিশু জানায় তাদের কালিয়াগঞ্জে কোন পার্ক ছিল না ।তারা তার বাবা মায়ের কাছে শুনতে পেরেছে দুটি বড় মাপের পার্ক হচ্ছে সেই কারনে তারা খুব খুশি।পার্কে গিয়ে অনেক আনন্দ করতে পারবে তারা।

এদিকে রমেশ সাহা নামে পৌরবাসি জানান, দির্ঘ দিন ধরের শহর বাসির দাবি ছিল কালিয়াগঞ্জে যাতে পার্ক গড়ে উঠে। পার্ক থাকে সাধারন মানূষ থেকে শিশুদের মন ভালো রাখতে খুব গুরুত্ব পূর্ন। পৌরসভার উদ্যোগে দুটি পার্ক গড়ার কাজ শুরু হয়েছে ফলে শহর বাসির দির্ঘ দিনের চাহিদা পুরন হতে চলেছে। 

Share this post

0 σχόλια:

Post a Comment

Top Ad 728x90