Top Ad 728x90

Friday, 30 November 2018

, ,

হাতির হানায় অতিষ্ঠ গ্রামবাসী

রাত কাটছে বিদ্যুতের টাওয়ারের টং ঘরে, হাতির হানা, কাঁচা ধানই কেটে ঘরে তুলছেন ডুয়ার্সের কৃষকরা ।
হাতি তাড়াতে কেউ কেউ সরু গাছের গুঁড়ি কেটে তৈরি করা খুঁটির ওপর বানিয়েছেন নজরমিনার বা টং ঘর । কারও আবার হাতি তাড়াতে রাত কাটছে হাই ভোল্টেজের বিদ্যুতবাহী তারের টাওয়ারে তৈরি করা টং ঘরে । টাওয়ারে মাচা বেঁধে ওপরে ত্রিপল টাঙিয়ে তৈরি করা হয়েছে নজরমিনার বা টং ঘর । ঘটনা আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট ব্লকের উত্তর খয়েরবাড়ি এলাকায়।





 এলাকার বাসিন্দারা জানান, 'প্রতি রাতই হাতি হানা দিচ্ছে । আমি পঁয়ত্রিশ হাজার টাকা খরচ করে পনের বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছি । বাধ্য হয়ে কাঁচা ধানই কেটে ঘরে তুলতে হচ্ছে । না হলে ওই টাকাটাও তুলতে পারব না ।' এলাকার লিলি এক্কা বলেন, 'এলাকায় বোরো চাষ আগেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে । আমরা শুধু আমন ধানের চাষই করি।  বিদ্যুতের টাওয়ারে টং ঘর তৈরি করে রাতে পাহারা দিচ্ছে যুবকরা ।' চাঁপাগুড়িতেও ফসল বাঁচাতে বিদ্যুতবাহী তারের টাওয়ারে টং ঘর বানিয়ে রাতপাহারা দিচ্ছেন এলাকাবাসী । এলাকার গ্রামপঞ্চায়েত সদস্য বাবলু প্রধান বলেন, ' প্রতি রাতে পঁচিশ তিরিশটি হাতির পাল ধানক্ষেতে হানা দিচ্ছে । চাষবাস করা মুশকিল হয়ে পড়েছে । উত্তর খয়েরবাড়ির ২ নং যৌথ বন পরিচালন সমিতির সদস্য বদরুল আলম বলেন, ' ধানের শিষ বেরোতে না বেরোতেই হাতির হানা শুরু হয়েছিল । অর্ধেক ধান ইতিমধ্যেই হাতির পেটে গিয়েছে । অনেকেই কাঁচা ধান কেটে ঘরে তুলছেন । আমরা এলাকায় পাকা নজরমিনার তৈরির দাবিতে সম্প্রতি বনমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দিয়েছি ।'
লাগাতার হাতির হানায় উত্তর খয়েরবাড়ির কৃষকদেরও চাষবাস শিকেয় উঠেছে ।
এছাড়া, মাদারিহাটের বন লাগোয়া এলাকায় কয়েকটি পাকা নজরমিনার তৈরি করার কাজ শুরু হয়েছে । কয়েকটি নজরমিনার তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে । গ্রামবাসীদের চাহিদা মেটাতে প্রয়োজনে পরবর্তীতে আরও কিছু নজরমিনার তৈরির জন্য চিন্তাভাবনা করা হবে ।' গোটা ডুয়ার্সে এক চিত্র।সমস্যায় কৃষক রা।কাচাঁ ধান তুলে নিয়ে ক্ষতির মুখে তারা।

Share this post

0 σχόλια:

Post a Comment

Top Ad 728x90